Skip to content

খামার রেজিস্ট্রেশন করবেন কিভাবে? খামার রেজিস্ট্রেশন এর সুবিধা কি? গরুর ছাগলের ভেড়ার খামার নিবন্ধন

খামারিয়ান লাইভস্টক ভিলেজ

খামার রেজিস্ট্রেশন করবেন কিভাবে? খামার রেজিস্ট্রেশন এর সুবিধা কি? গরুর ছাগলের ভেড়ার খামার নিবন্ধন
আজকে আমরা আলোচনা করবঃ

– খামার রেজিস্ট্রেশন এর সুবিধা / খামার নিবন্ধন ফরম খামার নিবন্ধন সুবিধা।

– খামার রেজিস্ট্রেশন ফরম।

– খামার রেজিস্ট্রেশন ফি / খামার নিবন্ধন ফি।

 

আপনার গরু ছাগল ভেড়া বা অন্যান্য প্রাণির খামার রেজিস্ট্রেশনের বিষয়ে নিবন্ধন ফিসহ এই পোস্টটির মাধ্যমে জানতে পারবেন। তাই অনুরোধ থাকলো সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার।

খামার রেজিস্ট্রেশন এর সুবিধা কি?

১) পশুরোগ আইন ২০০৫ এর ধারা ১৬ অনুসারে নিবন্ধন ব্যতীত কোন ব্যক্তি বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে গবাদিপশু ও হাস- মুরগীর খামার স্থাপন ও পরিচালনা করিতে পারিবেন না।

২) সরকারী অনুদান/প্রণোদনা ইত্যাদি ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

৩) প্রাণিসম্পদ বিভাগ কর্তৃক প্রদত্ত বিভিন্ন সেবাসমূহ যেমন -প্রশিক্ষণ, টিকা, নিয়মিত পরিদর্শন, পরামর্শ ইত্যাদি ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন ।

৪) ব্যাংক থেকে কৃষি খণ গ্রহনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিগার পাবেন। অপরদিকে, রেজিস্ট্রেশন ছাড়াও আপনি লোন পেতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর বা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে গবাদিপশু পালন বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার নিকট থেকে খামারী হিসেবে প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন হবে। এছাড়া আপনি ব্যাংকে যোগাযোগ করে আনুষিাঙ্গিক কাগজপত্র বিষয়ে জানতে পারবেন।

৫) আপনার খামার নিবন্ধিত থাকলে প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তারা আপনার খামার সম্পর্কে অবগত থাকবেন এবং বিভিন্ন সময় আপনার খামারে পরিদর্শনে আসবেন।

৬) আপনার খামার রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে, সরকার কর্তিক খামারিদের দেওয়া সকল প্রণদনা, অনুদান, সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন।

৭) সর্বপরি, আপনার উপজেলার প্রাণীসম্পদ অফিসের ডাক্তারদের সাথে একটি সম্পর্ক তৈরি থাকবে, এত করে বিপদের সময় সহজেই আপনি পরামর্শ ও চিকিৎসা পেয়ে থাকবে।

সরকারের কাছ থেকে খামার চালানোর জন্য খমার রেজিস্ট্রেশন ও ডেইরি ব্যাবসা পরিচালনা করার জন্য ট্রেড লাইসেন্স নেওয়া থাকলে। কম্পানির কাছে দুধ বিক্রি করতে যেমন: প্রাণ, মিল্কভিটা ইত্যাদি, জমিতে সেচ দেওয়ার জন্য অথবা অন্যান্য কাজে এগুলো প্রয়োজন হতে পারে।

( গরুর খামার রেজিস্ট্রেশন করতে সর্ব নিম্ন ১০ থেকে ২০ টি গাভী থাকতে হবে।)

আপনার ফার্ম বা খামার রেজিস্ট্রেশন কিভাবে করবেন?

খামার রেজিস্ট্রেশনের  দুটি উপায়ে আবেদন করা যায়।

ক. উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে সরাসরি গিয়ে সরাসরি ফর্ম পূরণের মাধ্যমে আবেদন

খ. অনলাইনে ফর্ম পূরণ।


সরাসরি 
প্রাণিসম্পদ অফিসে গিয়ে কিভাবে আবেদন করবেন?

ফর্মে আবেদন করতে হলে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে খামার রেজিস্ট্রেশনের জন্য আপনি গেলে সেখান থেকে তারা একটি আবেদন ফর্ম দিবে। ফর্মটা পূরণ করে আপনার খামারে  প্রাণি সংখ্যা অনুযায়ী নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি হিসেবে ব্যাংকে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে জমা দিয়ে চালান এর কপিটা প্রাণিসম্পদ অফিসে জমা দিলেই আপনার কাজ শেষ।

ফর্মটি এই এখান “CLICK” করেও ডাউনলোড করে নিতে পারেন:



অনলাইনে 
কিভাবে আবেদন করবেন?

অনলাইন আবেদন করার ক্ষেত্রে ই-ফর্ম পূরণের জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন।

প্রয়োজন হলে আবেদন ফরমে ছবি ও স্বাক্ষর আপলোড করুন এবং যে সব কাগজপত্র আবেদনের সাথে দেওয়া  প্রয়োজন সেগুলো “সংযুক্ত” অপশনে ক্লিক করে আপলোড করুন।

“অফিস বাছাই করুন” অপশন হতে আবেদনটি যে অফিসে পাঠাতে চান সেই অফিস নির্বাচন করুন।

আবেদন ফরমের লাল তারকা চিহ্নিত ঘরগুলো অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

আবেদনের সময় পেমেন্ট বিষয় মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পরিশোধ করুন।

এরপর ‘প্রেরণ’ বাটনে ক্লিক করবেন। “আপনার আবেদনটি সফলভাবে প্রেরণ করা হয়েছে” মর্মে একটি বার্তা আসবে।

আপনি আবেদন প্রেরণ না করা পর্যন্ত আপনার সিস্টেমে তা খসড়া হিসেবে সংরক্ষিত থাকবে। পরবর্তীতে তা আপনি প্রেরণ করতে পারবেন।

আবেদন প্রেরণের পর আপনি একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র পাবেন। এটি সংরক্ষণ করুন। পরবর্তীতে “আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা” বাটনে ক্লিক করে এই নম্বরটি দিয়ে সর্বশেষ অগ্রগতি জানতে পারবেন।

নোটঃঅসতর্কতার জন্য কোন ভুল অথবা অসম্পূর্ণ আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না তা্কই প্রেরণ বাটনে ক্লিক করার পূর্বে ভালো করে যাচাই করে নিবেন। প্রতিটি ধাপে প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করে পরবর্তী ধাপে প্রবেশ করবেন।


অনলাইনে বা সরাসরি আবেদন করার পর কি করতে হবে?

➡ অনলাইনে বা সরাসরি পূরণকৃত ফর্ম এবং টাকা জমাদানের চালান এর কপি প্রাণিসম্পদ অফিসে জমা হবেে
এর পর উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে আপনার আবেদনটি জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে পাঠানো হবে।
জেলা প্রাণিসম্পদ থেকে পরিদর্শনের জন্য আবার উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস এ পাঠানো হবে।
উপজেলা থেকে আপনার ফার্ম পরিদর্শনের করে রিপোর্ট সহ পূণরায় জেলাতে যাবে
জেলাতে নিবন্ধিত হয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে ফেরত আসলেই আপনি আপনার রেজিস্ট্রেশন নাম্বারসহ কপি পেয়ে যাবেন।

নোটঃএ প্রক্রিয়ায় ১/২ মাস সময় লেগে যেতে পারে, কিন্তু আপনাকে কিছুই করতে হবে না।


ফার্ম রেজিস্ট্রেশন খরচ কত লাগবে?

অনেকে “খামার রেজিস্ট্রেশন” ঝামেলাপূর্ণ অপ্রয়োজনীয় বিষয় ভাবেন। আমাদের দেশের অধিকাংশ খামারি জানেনইনা কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবে। বাস্তবে খামার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়াটা কিন্তু খুবই সরল। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের দ্বারা রেজিস্ট্রেশন করতে আপনাকে সহযোগিতা করবে। কাজেই আপনারা যারা এখনো খামার রেজিস্ট্রেশন করেননি, তারা উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস গিয়ে আপনার ফার্মকে রেজিস্ট্রেশন করে ফেলতে পারেন আজকেই।

এই পোষ্টটি কেমন লেগেছে?

রেটিং দিতে স্টার এ ক্লিক করুন!

Average rating 4.5 / 5. Vote count: 2

No votes so far! Be the first to rate this post.

We are sorry that this post was not useful for you!

Let us improve this post!

Tell us how we can improve this post?

(চাইলে পোষ্টটি শেয়ার করতে পারেন)

10 thoughts on “খামার রেজিস্ট্রেশন করবেন কিভাবে? খামার রেজিস্ট্রেশন এর সুবিধা কি? গরুর ছাগলের ভেড়ার খামার নিবন্ধন”

  1. Pingback: ডেইরি ফার্ম করার নিয়ম 8 টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট: ডেইরি খামার করার নিয়ম » খামারিয়ান লাইভস্টক ভি

  2. আন্তরিক ভাবে দুখিঃত। বিষয়টি সংশোধন করে দেওয়া হয়েছে। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত জানানোর জন্য। ভবিষ্যতে আমরা আরও সচেতন ভাবে লেখার চেষ্টা করব।

  3. খামার নিবন্ধন এর সুবিধা সম্পর্কে কোথায় লিখছেন পাচ্ছি না খুজে…
    আপনিও খুজে দেখেন। না পেলে ভাববেন গ্রাহক কে ঠকানো হচ্ছে গ্রাহকের সময় নষ্ট হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.