Skip to content

ছাগলের টিটেনাস বা ধনুষ্টংকার রোগের কারণ, লক্ষণ ও প্রতিরোধের উপায়। ছাগল চিকিৎসা

ছাগলের টিটেনাস বা ধনুষ্টংকার রোগের কারণ, লক্ষণ ও প্রতিরোধের উপায়। ছাগল চিকিৎসা
 
ছাগলের টিটেনাস বা ধনুষ্টংকার রোগের কারণ, লক্ষণ ও প্রতিরোধের উপায়। ছাগল চিকিৎসা

লক্ষণ ও রোগের কারণঃ

(01) খিঁচুনি দেখা যায়, মুখ থেকে লালা ঝরে।

(02) প্রথম দিকে দেহের তাপমাত্রা বেড়ে যায় এবং শেষ দিকে তাপমাত্রা কমে যায়।

(03) দেহ শক্ত হয়ে বেকে যায়, পা ও ঘাঁড় শক্ত হয়ে যায় বলে আক্রান্তছাগল চলাফেরা করতে পারেনা এমনকি দাড়াতেও পারেনা।

(04) এ রোগে আক্রান্ত ছাগলের চোয়াল, গলা ও দেহের অন্যান্য অংশের মাংসপেশী শক্ত হয়ে যায় |

(05) দাঁতের মাড়ির মাংসপেশী শক্ত হয়ে যাওয়ার ফলে দাঁত লেগে যায় বলে ছাগল খেতে পারে না |

(06) তীব্র আক্রান্তছাগল কয়েকদিনের মধ্যে মারা যায় |

(07) যে কোন অপারেশন, খাসীকরণ, বাচ্চা প্রসবের সময় ছাগীতে বা ছাগল ছানার নাভীতে ক্ষত সৃষ্টি হলে উক্ত ক্ষতে যদি ক্লোস্ট্রিডিয়াম টিটানি নাম ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমন ঘটে তখন টিটেনাস রোগ হয় ।

প্রতিরোধেরে উপায়সমূহঃ

(01) খোঁজাকরণ, নাড়ি কর্তন, লোম কাটাসহ যে কোন ধরণের অপারেশনের সময় ছাগলকে অ্যান্টি টেটানাস সিরাম বা টেটানাস টক্সয়েড ইনজেকশন করতে হবে ।

(02) ডেটল, সেভলন প্রভৃতি এন্টিসেপটিক দিয়ে ক্ষতস্থান পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে ।

(03) এক বছর পরপর দুইবার ছাগীকে Anti tetanus serum বা Tetanus Toxoid ইনজেকশন প্রদান করলে এ রোগের আশংকা অনেক কমে যাবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *