Skip to content

ভেড়ার খাদ্য তালিকা ভেড়ার খাবার তালিকা ৫০ কেজি দৈহিক ওজনের একটি ভেড়ার খাদ্য ফর্মুলা

পালন পদ্ধতি খামারিয়ান ছাগলের খামার ছাগল পালন প্রশিক্ষণ chagol palon training chagoler khamar chagol farm sagol Khamarian 30 ভেড়ার খাদ্য তালিকা ভেড়ার খাবার তালিকা ৫০ কেজি দৈহিক ওজনের একটি ভেড়ার খাদ্য ফর্মুলা ছাগল ও ভেড়া ভেড়ার খাবার ভেড়ার খাবার তালিকা ভেড়ার খাদ্য তালিকা ভেড়ার খামার ভেড়া পালন ভেড়া পালন পদ্ধতি ভেড়া পালন বই pdf ভেড়া পালনের নিয়ম ভেড়া পালন বই pdf

▶ ৫০ কেজি দৈহিক ওজনের একটি ভেড়ার খাদ্য ফর্মুলাঃ

(01) সবুজ ঘাস – ১.০ কেজি

(02) ঘাসের সাইলেজ – ১-১.৫ কেজি

(03) খড় – পরিমান মত

(04) তিল/তিসি/সয়াবিন গুড়ো – ১২০ থাম

(05) চুনা পাথর গুড়ো – ০.২৫ আউন্স

▶ ভেড়ার খাদ্য ব্যবস্থায় ৭ ধরণের খাবার থাকা দরকারঃ

(01) দানাদার খাবার; উদাহরণস্বরূপ-ভূট্টা, গম প্রভৃতি।

(02) প্রোটিণের যোগান; উদাহরণস্বরূপ-সয়াবিন মিল, খৈল, ফিস মিল, ইউরিয়া প্রভৃতি।

(03) কাঁচা ঘাস; উদাহরণস্বরূপ-নেপিয়ার,জাম্বু, প্যারা, জার্মান প্রভৃতি।

(04) রোদে শুকনো ঘাস বা হে; উদাহরণস্বরূপ-খেসাড়ি, মাসকালাই প্রভৃতি।

(05) বাই প্রোডাক্ট; উদাহরণস্বরূপ- ধানের খড়, গমের খড় প্রভৃতি।

(06) সাইলেজ; উদাহরণস্বরূপ- ভূট্টা, নেপিয়ার প্রভৃতি।

(07) মিনারেল; উদাহরণস্বরূপ- লবন, মিনারেল প্রিমিক্স, চুনা পাথর প্রভৃতি।

▶ দানাদার খাদ্যঃ

(01) খৈল।

(02) গম ভাঙা।

(03) চাল ভাঙা।

(04)বীজ (সয়াবিন, তুলাবীজ ইত্যাদি)

(05) ভূষি (গম, ভূট্রা, ছোলা ইত্যাদি)

প্রভৃতি।

খাদ্য তালিকা ভেড়ার খাবার তালিকা ৫০ কেজি দৈহিক ওজনের একটি ভেড়ার খাদ্য ফর্মুলা ভেড়ার খাদ্য তালিকা ভেড়ার খাবার তালিকা ৫০ কেজি দৈহিক ওজনের একটি ভেড়ার খাদ্য ফর্মুলা ছাগল ও ভেড়া ভেড়ার খাবার ভেড়ার খাবার তালিকা ভেড়ার খাদ্য তালিকা ভেড়ার খামার ভেড়া পালন ভেড়া পালন পদ্ধতি ভেড়া পালন বই pdf ভেড়া পালনের নিয়ম ভেড়া পালন বই pdf

▶ কাঁচা ঘাস বা রাফেজ জাতীয় খাদ্যঃ

(01) নেপিয়ার ঘাস।

(02) পারা ঘাস।

(03) ভুট্টা ঘাস।

(04) গিনি ঘাস।

(05) আলফা আলফা।

(06) কাউপি।

(07) বাঁধা কপি।

(08) সূর্যমূখী গাছ।

(09) সরিষা গাছ।

(10) গোল আলু গাছ।

প্রভৃতি।

মিনারেলঃ

(01) লবন।

(02) মিনারেল প্রিমিক্স।

(03) চুনা পাথর ।

ইত্যাদি

ঘাস নির্বাচনে খামারীকে তিনটি বিষয় জানতে হবেঃ

১. ঘাসের পুষ্টিমান- সবার আগে জানতে হবে কোন ঘাসে কি পরিমান পুষ্টি আছে। শুধু কাঁচা ঘাস দিলেই হবে না। কারন কত পরিমান ঘাস খাওয়ানো হল তা আসল নয়, বরং পশু কি পরিমান পুষ্টি পেল সেটাই মূখ্য বিষয়।

২. ঘাসের ড্রাইমেটার- পুষ্টিমান হিসাব করা হয় ঘাসের পরিমানের উপর নয়, বরং ড্রাইমেটারের উপর। একটা পশু গড়ে তার শরীরের ৪% ড্রাইমেটার লাগে। জাবরকাটা ও খাবারকে পুষ্টিতে রুপান্তর করতে।

৩.পশুর খাদ্য গ্রহন ক্ষমতা- পশু তার নিজ ওজনের ১০% কাঁচা ঘাস খেয়ে থাকে। তবে অনেক সময় দেখা যায়, এর চেয়ে বেশি খাচ্ছে। কারন পশু যখন নিজ ওজনের ১০% খাবার খেয়েও প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাচ্ছে না, তখন বেশি খেতে থাকে। উদাহরণস্বরূপ ৩০ কেজি ওজনের একটি পশু ১০% হিসাবে ৩ কেজি ঘাস খায় । এতে ঘাসে ৩০% অর্থাৎ কেজিতে ৩০০ গ্রাম অর্থাৎ ৩কেজি ঘাসে ৯০০ গ্রাম ড্রাইমেটার পাচ্ছে। কিন্তু দরকার ৪% হারে ১২০০ গ্রাম।

উপসংহারঃ

ভেড়া হতে অধিক মাংস ও পশম পেতে হলে ভেড়াকে ঘাস, খড় ও লতা-পাতা খাওয়ানোর সাথে সাথে প্রোটিন জাতীয় দানাদার খাবার খাওয়াতে হবে ৷ ভেড়া থেকে ভাল উৎপাদন পেতে হলে চাহিদা মোতাবেক সুষম খাদ্য সরবরাহ করতে হবে । দুধ, মাংস ও পশম উৎপাদনে প্রচুর প্রোটিন বা আমিষের প্রয়োজন হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *